76 / 100

বাড়ি বানানোর নিয়ম কি ? bari bananor niyom ki ?

বাড়ি বানানোর নিয়ম bari bananor niyom জেনে বাড়ি করতে হবে। একবার ভুল হয়ে গেলে তো পরিবারের সহ সমাজের অনেক বড়ো ক্ষতির কারণ। বাড়ি বানানোর নিয়ম এর জন্য আমাদের দেশে “বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড” আছে।

২০২০ সালে প্রকাশিত বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড অনুসারে বাড়ি বানানোর আগে সরকার অনুমোদিত স্থপতির মাধ্যমে বাড়ির নকশা ও তালিকা ভুক্ত সিভিল ইঞ্জিনিয়ার দ্বারা ভবনের স্ট্রাকটার ডিজাইন করতে হবে। ও রাজউক বা সিটি কর্পোরেশন বা পৌরসভা থেকে প্ল্যান পাশ করে প্ল্যান মতো নির্মাণ করতে হবে। 

এবং নির্মাণ কাজ করার সময় একজন ইঞ্জিনিয়ার কে সার্বক্ষণিক তদারকির মদ্ধে রাখতে হবে। 

আকবর ভুল হয়ে গেলে পরে আবার করা অনেক ঝামেলা। তাই ভুল হওয়ার আগে ই ঠিক ভাবে কাজ করতে হবে। 

বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড অনুসারে এক তলা বাড়ি বানানোর ক্ষেত্রে ও ডিপ্লোমা প্রকৌশলী দ্বারা নকশা ও স্ট্রাকচার ডিজাইন করার অনুমিতি নেই। 

রাজউকের বাড়ি বানানোর নিয়ম

রাজউকের বাড়ি করার নিয়ম

পৌরসভার মধ্যে বাড়ি বানানোর নিয়ম

পৌরসভার মধ্যে বাড়ি বানানোর নিয়ম এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে

ভবনের উচ্চতা হবে সামনের রাস্তার প্রস্থ যা আর রাস্তা বা জমির কর্নার থেকে ভবনের মদ্ধ বর্তী ফাঁকা জায়গা এর দুরুত্বের ২ গুন্ হবে। এর বেশি হবে না।

জমির মাপ হিসাবে ৩ পাশে জমি ছাড়তে হবে।

ভবনের / বাড়ির পাশে ফাঁকা জায়গা রাখার নিয়ম জানতে আমাদের বাড়ির ডিজাইন নকশা এই পেজের মধ্যে আছে।

পৌরসভার ক্যাটাগরি অনুসারে কিছু পৌরসভা তে শুধু আর্কিটেকচার পার্ট দিলে হয়। 

কিছু পৌরসভাতে আর্কিটেকচার ও স্ট্রাকচার পার্ট দিতে হয়।

বাড়ির প্ল্যান পাশ, পৌরসভার মধ্যে বাড়ি বানানোর নিয়ম
পৌরসভার মধ্যে বাড়ি বানানোর নিয়ম

বাড়ি বানানোর নিয়ম

জায়গা ছেড়ে বাড়ি বা ভবন করলে সুবিধা কি ??

জায়গা ছেড়ে ভবন করলে ভবন মালিকের ই সুবিধা বেশি। আর যদি জমি না ছেড়ে করা হয় তাহলে অসুবিধা ই বেশি। যেমন 

আপনি যদি নিয়ম মেনে ৬৭.৫% জমি ব্যবহার করেন তাহলে বাকি জায়গা আলো বাতাস আসার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ হবে। একবারে যদি ব্লক করে দেন তাহলে তো বাতাস আসবেনা। আলো ও আসবে না।  আর আলো বাতাস না আসলে আপনি তো সুস্থ থাকবেন না সেই সাথে আপনার ঘরের আসবাব পত্র ও নষ্ট হবে।  এমন কি বাহির থেকে আসলে ঘাম এর কাপড় ও নষ্ট হয়ে যাবে। 

অধিকাংশ ভবন যেভাবে নিয়ম মেনে করা হচ্ছে না তাতে আপনার পাশের ভবন অন্তত অল্প হেলে পড়লে ও আপনার ভবনের সাথে লেগে যাবে না। 

তাছাড়া অগ্নি নির্বাপন কাজে ও ফাঁকা জাগায়কাজে লাগে। তবে বাস্তবতা হলো বইতে নূন্যতম ফাঁকা জায়গা রাখার কথা বলা আছে। তাই অবস্যই মানতে হবে। 

তাছাড়া জমি ছেড়ে ভবন করলে বৃষ্টির পানি মাটির মাদ্ধমে গভীর স্তরে যেতে পারে। এখন ঢাকা শহরের যে অবস্থা বেশি বৃষ্টি হলে ই জলাবদ্ধ হয়ে যায়।

সবাই যদি চারপাশে জায়গা খালি না রেখে বাড়ি বানায় তাহলে ভবিষ্যতে মাটির ভেতরকার পানির স্তর অনেক নিচে নেমে যাবে। বলা যেতে পারে একটা ফাঁপা জায়গার উপর ঢাকা শহর দাঁড়িয়ে থাকবে

নিয়ম মেনে বাড়ি নির্মাণ করলে যে কোনো ব্যাংক থেকে ঋণ পাওয়া সুবিধা হয়। 

76 / 100
x

বাড়ির ডিজাইন করতে চাইলে এই ফ্রম পূরণ করুন

হা আমরা অনলাইন বাড়ির প্ল্যান ডিজাইন এর কাজ করি। যেহেতু আপনার এলাকায় আমাদের অফিস না

তাই আমরা অনলাইনে ই কাজ করি। 

আমরা প্রি পেইড এ কাজ করি। কাজ এর শুরুতে আমরা বায়না করার জন্য ২০% পেমেন্ট নিয়ে থাকি।